স্যার কখনো বসে বসে পড়াতেন না

মনিরুল ইসলাম, যশোর

তাঁর ছাত্রদের ভাষায়, ‘রশিদ স্যার কখনো বসে বসে পড়াতেন না।’ আদতেই তা-ই, ক্লাসে পড়ানোর সময় মো. আবদুর রশিদ কখনোই চেয়ারে বসতেন না। ক্লাসে ঘুরে ঘুরে গল্পের ছলে পড়া বুঝিয়ে দিতেন। মো. আবদুর রশিদ ঝিকরগাছা সরকারি এম এল মডেল হাইস্কুলের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক।

শিক্ষক আবদুর রশিদ একজন বীর মুক্তিযোদ্ধাও। তাঁর প্রাক্তন ছাত্র এ কে এম শাওন কাদির বলছিলেন, ‘ক্লাসে রশিদ স্যার প্রতিটি বেঞ্চে একটা করে দল তৈরি করে দিতেন। একটা অধ্যায় পড়ার পর ভিন্ন ভিন্ন প্রশ্ন বানিয়ে প্রতিটি দলকে উত্তর লিখতে বলতেন। লেখার পর গ্রুপ থেকে একজনকে সামনে নিয়ে সেটা আবার পড়তে বলতেন। ক্লাসে সেই গ্রুপকে আবার নম্বর দিতেন। পড়ানোর এই পদ্ধতিটি দারুণ ও আধুনিক।’

আবদুর রশিদের পড়ানোর এই আধুনিক কৌশল, তাঁর পাণ্ডিত্যের প্রশংসা করেন সবাই। কেবল ছাত্রছাত্রীই নয়, শিক্ষকদের কাছেও তিনি আদর্শ। এখনো সমাজের উন্নয়নে, পরিবেশ রক্ষার আন্দোলনে তাঁকে পাওয়া যায় সামনের সারিতেই।

টানা ৪০ বছর শিক্ষকতা করেছেন। বয়স এখন ৭০ ছুঁই ছুঁই। সম্প্রতি তাঁর বাড়িতে গিয়েছিলাম। দুই আলমারিভর্তি বই দেখে বুঝতে অসুবিধা হয়নি অবসরে নিয়মিত ডায়েরি লেখার পাশাপাশি বই পড়েন তিনি। তাঁর লেখা ২০টি ডায়েরিও সাজানো আছে সেখানে। আছে তাঁর লেখা বইও।

Categories সম্মাননা ২০২০

Post Author: abul hasan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *